• আজ- শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ০১:২৩ অপরাহ্ন
Logo

আর কি দেখা পাব তাঁর

কাজী আব্দুল্লা হিল আল কাফী / ১০৬ বার দেখা হয়েছে
আপডেট : শনিবার, ৬ মে, ২০২৩

add 1

বিকেল বেলায় রোজ শান্ত নদীর পাড়ে বসে সন্ধ্যা পর্যন্ত একা সময় কাটায়। নদীর পাড়ে আবহাওয়া যেন শান্ত র কাছে খুবই ভালো লাগে। তাই রোজ নদীর পাড়ে এসে বসে। বেশ কিছুদিন যাওয়ার পর হঠাৎ একদিন দেখলো একটি মেয়ে নদীর ধারে ছুটে যায় আর গান গায়। মেয়েটির গানের সুর খুব সুন্দর ছিল। চুলে সুন্দর লাল নীল ফিতা দিয়ে বেণী বাঁধে। হাতে কিছু বেলী ফুল থাকে। প্রতিদিন ঐ পথ দিয়ে ছুটে চলে গান গায়। শান্ত’র খুবই ভালো লাগে। কোনোদিন যদি না আসে তাহলে শান্ত মনে মনে খুঁজতো। অনেক সময় কেটে যায়। একদিন হঠাৎ বিকেল বেলায় শান্ত নদীর পাড়ে বসে একা গান গাইতে শুরু করলো। মেয়েটি পাশ দিয়ে ছুটে চলার সময় শান্ত র গান শুনে একটু দুরে দাঁড়িয়ে শুনছিল। শান্ত গান শেষ করার পর মেয়েটি পাশে এসে বসলো। জিজ্ঞেস করলো আপনি তো সুন্দর গান করেন। শান্ত উত্তরে বললো গান করতে পারি না। তবে মোবাইলে যা শুনি তাই আরকি গাওয়ার চেষ্টা করি। যাই হোক আপনার সাথে তো পরিচয় হতে পারি। আমি কথা পাশের গ্রামে থাকি। আপনি! আমি শান্ত আমিও ঐ পাশের গ্রামে থাকি। প্রতিদিন বিকেল বেলায় এখানে নদীর পাড়ে এসে বসে কিছু সময় পার করি। হঠাৎ কথা বলে উঠলো আমি হঠাৎ করে আসি গান গাইতে গাইতে। পরিচয় হয়ে ভালো লাগলো। আবারো যদি কখনো আসি তাহলে দেখা হবে। শান্ত বলে উঠলো অবশ্যই। কথা যাওয়ার সময় শান্ত র মুখের দিকে তাকিয়ে একটা মুচকি হাসি দিয়ে দৌড়ে সেখান থেকে চলে গেলো। শান্ত কিছু বললো না। শান্ত ঠিক সময়ে রোজ নদীর পাড়ে আসতো। হঠাৎ একদিন দেখে শান্ত আসার আগে শান্ত র বসার স্থানে কথা এসে বসে আছে। শান্ত দেখে তো অবাক! শান্ত এসে পাশে বসে বললো আরে আপনি কেমন আছেন কথা বললো আছি ভালো। আপনার কি অবস্থা? এইতো যাচ্ছে কোনমতে দিন। এমনি বসে সেথায় নানান কথা হতো। কথা মনে মনে শান্ত কে খুবই পছন্দ করতো। কিন্তু বলতে পারতো না। ঠিক রোজ যাওয়ার সময় মুচকি হাসি চলে যেত। প্রতিদিনের ন্যায় আজও শান্ত র আগে এসে নদীর পাড়ে বসে থাকতো কথা। শান্ত কিছু বলতো না। কথা কিভাবে শান্তকে বলবে যে তোমাকে আমার অনেক ভালো লাগে। আমি তোমাকে ভালোবাসি। একদিন সেজোগুজে হাতে ফুল নিয়ে আসলো সেই স্থানে। ফুল দেখে শান্ত বললো ফুল কোথা পেলে দারুণ তো। কথা ফুলগুলো শান্ত র হাতে দিলো কিন্তু কিছু বলতে পারলো না। বরং ভয় ভয় করলো। পরেরদিন কলেজ মাঠে জিজ্ঞেস করলো শান্ত কেমন আছো। এদিকে আসো একটু কথা বলবো যেতে যেতে বললো কিভাবে যে বলবো। শান্ত বললো বলো কোনো সমস্যা নেই। তখন কথা বলে উঠলো আমি কি আপনাকে আপনি থেকে তুমি বলতে পারি। শান্ত বললো ওকে বলতে পারো। তখনই কথা হাতে একটা গোলাপ ফুল দিয়ে বলে উঠলো আমি তোমাকে ভালোবাসি। বলে দৌড় দিয়ে ক্লাসে চলে গেলো। শান্ত কিছু বললো না। সেদিন বিকেল বেলায় নদীর পাড়ে আগে কথা এসে বসে আছে। শান্ত এসে পাশে বসলো। কথার মুখের পাণে চাইলো। আসলে তুমি আমায় ভালোবাসো। কথা বলে হ্যা সত্যি তোমায় আমি তোমায় ভালোবাসি। সুন্দর ভাবে চললো তাদের প্রেম প্রীতি আর ভালোবাসা। দুজনের মধ্যে একটা মায়া সৃষ্টি হলো। একসাথে রোজ কলেজ যায় প্রাইভেট পড়ে অবসর সময় কাটায়। কোনো অনুষ্ঠান হলে একসাথে যোগ হয়। শান্ত আর কথার মধ্যে খুব ভালো সম্পর্ক ছিল। এভাবে চলে গেল একটি বছর। পরবর্তীতে হঠাৎ করে দুজনের মধ্যে বন্ধন ভেঙে গেল। পরবর্তী সময়ে আর তাদের কোনো সম্পর্ক ছিল না। এভাবে চলছে ব্যর্থতার জীবন। শেষে বসে শান্ত নদীর পাড়ে গাইছে গান আর কি দেখা পাবো তাঁর।

add 1


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

অন্যান্য লেখা সমূহ
Content writing

আজকের দিন-তারিখ

  • শুক্রবার (দুপুর ১:২৩)
  • ২৪ মে, ২০২৪
  • ১৫ জিলকদ, ১৪৪৫
  • ১০ জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ (গ্রীষ্মকাল)
Raytahost Facebook Sharing Powered By : Sundarban IT